What is Happening in the Current Real Estate Sector of the Country? November 2016 Update

december

 

Get the latest scoop in the industry from various dailies and stay up to date with the real estate market in Bangladesh.

Around 800 flats of Uttara Apartment Project to be handed over by December

Mohammad Abu Taleb

Source: Daily Ittefaq

Date: 22 November 2016

Around 800 flats from 10 buildings of RAJUK’s Uttara Apartment Project will be handed over to the customers by December. The construction of remaining flats will also be completed and handed over as soon as possible. The article also states about price reduction of apartments to 4500tk per square foot and home loan offer with 8.5% interest rate.

About the project, Ministry of Housing and Public Works, Engineer  Mosharrof Hossain stated that homebuyers can pay installment availing home loan due to a tie up between RAJUK and Standard Chartered Bank.

According to sources, Standard Chartered Bank is offering home loan with low interest rate and long repayment period to buyers of Uttara Apartment Project. The interest rate is 8.5% and loan tenure is 25 years. However, apartment buyers have to bear 30% of total apartment value from own equity and the rest will be provided as loan amount.

The project is situated at Uttara Sector 18 and consists of 179 buildings with 15036 flats. Among these, 8636 flats have been almost completed. And 840 flats of 10 buildings are expected to be handed over by next December. Also around 100 buildings are being developed under an agreement with Malaysia.

The Uttara Apartment project is sited over 214.44 acres of Land. Around 45% of the land will comprise of greenery, playground, mosque, gymnasium, modern hospital, recreation centers, shopping mall, lakes and much more to attract prospective homeowners.

Apart from having lakeview apartments, the project will also feature basement and ground floor parking facility. Currently, RAJUK is establishing 40 flats and Public Works Department is establishing 39 flats. Besides these RAJUK will construct 60,000 flats in Purbachal and 11,000 flats in Jhilmil Residential Area.

These projects have been undertaken by Government to ensure housing for all and the flats will be targeted for low income people in near future.

RAJUK’s Chairman Bazlul Karim chowdhury stated regarding this, that these projects are targeted for low income people to provide accommodation with many features in open space.

Handover of Uttara Flats to be completed by 2018

Online report

Source: Daily Jana Kantha

Date: 17 November 2016

The article talks about handover issue of Uttara Project Flats. In the article it is mentioned that handover of all apartments is expected to be completed by December 2018 which has been informed by Ministry of Housing and Public Works, Engineer Mosharrof Hossain, when he visited the project site on Thursday.

RAJUK officials stated that the project consists of 79 multi-storied buildings and each building has 84 flats. Among a total of 6636 flats, so far 5796 flats have been sold out. These flats are expected to be handed over to the respective owners by December 2018 and the rest of the 840 flats will be advertised for sale later on. The handover of the remaining flats is expected to be completed by January 2019.

The minister stated that in Bangladesh lakes are much bigger in size than the rivers and in our country number of people is higher than land available which is why only plot sale would not have been sufficient for fulfilling housing accommodation of everyone.

Abandoned Homes in Dhanmondi will be demolished for new housing project

Senior Correspondent

Source: Banglanews24

Date:  10 November 2016

In a discussion meeting held at Sangsad on 10th November a recommendation has been made to develop new housing project after demolition of abandoned homes in Dhanmondi area. The meeting was arranged by Ministry of Housing and Public Works. In the meeting, several committee members of Ministry of Housing Public Works were present including Engineer Mosharuf Hossain, Kamal Ahmed Mojumder, Md. Jahid Ahsan Russell besides others.

Another recommendation to sell Uttara Apartment Project in attractive package was also made in the meeting. The report also states that at the same time, eviction of commercial projects in Residential Area under RAJUK should also continue.

The article also cites recommendation for an updated formulation of rules and regulation for allotment of flats for all projects. The committee in addition suggested RAJUK and National Housing Authority to follow international standards keeping in mind land composition, earthquake proneness, environment and population in the country.

Low interest rate home loan on RAJUK Flats from Standard Chartered Bank

Staff Reporter

Source: Arthosuchak

Date: 9 November 2016

The article talks of tie up between RAJUK and Standard Charted Bank through which apartment buyers can avail home loan with interest rate of 8.5%. The tie up was held on Wednesday in the capital city of Dhaka where chief guest Ministry of Housing and Public Works, Engineer Mosharuf Hossain was present among others.

He stated this is the first time buyers will get the home loan facility when purchasing RAJUK Flat. About RAJUK Apartment project he stated around 840 flats in 10 buildings will be handed over to homeowners by December. He also stated that price has been reduced to 4500tk per squarefoot for the RAJUK flats.

RAJUK Chairman, Bazlul Karim Chowdhury commented that construction of seventy nine 16 storied- buildings consisting of 6636 flats is underway in full speed.

Abrar A Anowar, CEO of Standard Chartered Bank stated the tie up has been made to reduce financial stress on consumers for apartment purchase. The offer includes 8.5% interest rate on home loan and loan tenure of 25 years.

Caution against Malaysian Apartment Project Fair

Source: Samakal

Date:  6 November 2016

The article cautions apartment buyers to be aware of a Malaysian Apartment Project fair since according to existing laws investing in foreign property is illegal and punishable offense.

A Malaysian company by the name of “the Marine” hosted an apartment fair for four days in the capital city. The fair was supposed to start from Sunday. Under these circumstances, buyers have been warned to not invest in foreign companies. Newspapers have also been alerted to not publish advertisements for such companies.

On last Friday since the fair could not be held, concerned personnel from company applied to REHAB. However, even after warnings from Bangladesh Bank and REHAB, the company went ahead and arranged this fair.

Mortuza Karim Sales representative from Bangladesh of the company stated that the fair will be held on Sunday and Monday in the capital city at Lakeshore and on Tuesday and Wednesday, the fair will be held at Chittagong Club. He further stated the fair has been arranged for those only with investments in Malaysia. However, from sources, no legal investment in Malaysia has been identified. The fair was arranged for buyers interested in investing in second homes. The article also notes another project fair from a different Malaysian company which was arranged in 2013 but eventually that fair was cancelled.

*************************************************************

দেশের বর্তমান রিয়েল এস্টেট সেক্টরে কি ঘটছে?

অনুবাদক: আহমেদ নাজিয়া

বিভিন্ন দৈনিক থেকে সাম্প্রতিক খবর পড়ুন এবং বাংলাদেশের রিয়েল এস্টেট মার্কেটের সাথেই থাকুন

উত্তরা এপার্টমেন্ট প্রোজেক্টের প্রায় ৮০০ ফ্ল্যাট হস্তান্তর করা হবে ডিসেম্বরের মাসে

মোহাম্মাদ আবু তালেব

উৎস: দৈনিক ইত্তেফাক

তারিখ: ২২নভেম্বর, ২০১৬

রাজউক উত্তরা এপার্টমেন্ট প্রোজেক্টের প্রায় ৮০০ ফ্ল্যাট ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই কাস্টমারদের হাতে হস্তান্তর করা হবে। বাকি ফ্ল্যাটগুলোর কাজও খুব তাড়াতাড়ি শেষ করে হস্তান্তর করা হবে। অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে এপার্টমেন্টের প্রতি স্কয়ার ফিটে ৪৫০০ টাকা কমানো হয়েছে এবং  ৮.৫% সুদে হোম লোনের সুবিধা দেওয়া হয়েছে।

এই প্রোজেক্ট নিয়ে গৃহায়ন এবং গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেছেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ও রাজউকের মধ্যে চুক্তির মাধ্যমে বাড়ি ক্রেতারা হোম লোন ইন্সটলমেন্টের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবে।

জানা গেছে উত্তরা এপার্টমেন্ট প্রোজেক্ট এর জন্য স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক কম সুদে হোম লোন সুবিধা দিচ্ছে এবং সেটা পরিশোধের সময়ও বেশি। সুদের হার ৮.৫% এবং লোন পরিশোধের সময় সীমা ২৫ বছর। এপার্টমেন্ট ক্রেতার টাকার ৩০% নিজে পরিশোধ করবে এবং বাকিটা ব্যাংক লোনের মাধ্যমে দেবে।

প্রোজেক্ট উত্তরা ১৮নং সেক্টরে অবস্থিত এবং ১৭৯ বিল্ডিংএ মোট ফ্ল্যাট সংখ্যা ১৫০৩৬। এগুলোর ভিতর ৮৬৩৬ টি ফ্ল্যাট তৈরি হয়ে গেছে এবং ১০টা বিল্ডিং এর ৮৪০টি ফ্ল্যাটের কাজ প্রায় শেষের পথে। আশা করা যাচ্ছে সেগুলো আগামী ডিসেম্বরের ভিতরে হস্তান্তর করা হবে। এছাড়া প্রায় ১০০টি বিল্ডিং এর কাজ চলছে মালোয়েশিয়ার সাথে একটি চুক্তির মাধ্যমে।

উত্তরা এপার্টমেন্ট প্রোজেক্ট ২১৪.৪৪ একর জমির উপর নির্মান করা হচ্ছে যার ৪৫% জমিতে সবুজ এলাকা, খেলার মাঠ, মসজিদ, জিমন্যাসিয়াম, আধুনিক হাসপাতাল, বিনোদন কেন্দ্র, শপিং মল, লেক সহ নানা আকর্ষণীয় স্থাপনা বানানো হবে যাতে ক্রেতারা আকর্ষিত হয়।

লেকভিউ এপার্টমেন্ট বাদেও এই প্রোজেক্টে বেজমেন্ট এবং গ্রাউন্ড ফ্লোর পার্কিং সুবিধাও আছে। সম্প্রতি রাজউক ৪০টি ফ্ল্যাট এবং গনপূর্ত অধিদপ্তর ৩৯ টি ফ্ল্যাটের কাজ করছে। পাশাপাশি রাজউক ৬০০০০ টি ফ্ল্যাট পূর্বাচলে এবং ১১০০০ টি ফ্ল্যাট ঝিলমিল আবাসিক এলাকাতে বানানোর কাজ শুরু করবে।

এই সব প্রোজেক্টের কাজ সরকারের দেখাশোনার ভিতরেই হচ্ছে যাতে সব আয়ের লোকেরা কিনতে পারে। কম আয়ের মানুষদের জন্য পরবর্তীতে এসব ফ্ল্যাট দেওয়া হবে।

রাজউক চেয়ারম্যান বজলুর করিম চৌধুরী বলেছেন এসব ফ্ল্যাট কম আয়ের মানুষদের জন্য করা হচ্ছে এবং খোলা যায়গায় নানা সুযোগ সুবিধাও দেওয়া হবে।

২০১৮ সালের মধ্যেই উত্তরা ফ্ল্যাটের হস্তান্তর করা হবে

অনলাইন রিপোর্ট

উৎস: দৈনিক জনকণ্ঠ

তারিখ: ১৭নভেম্বর ২০১৬

এই অনুচ্ছেদে উত্তরা প্রোজেক্টের হস্তান্তর বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে। এখানে বলা হয়েছে গৃহায়ন ও গনপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন চৌধুরী মঙ্গলবার প্রোজেক্ট ঘুরে এসে বলেছেন ২০১৮ সালের ভিতরেই সমস্ত এপার্টমেন্ট হস্তান্তর করা হবে।

রাজউক জানিয়েছে এই প্রোজেক্টে ৭৯টি বহুতল ভবন রয়েছে এবং প্রত্যেক বিল্ডিং এ ৮৪ টি ফ্ল্যাট আছে। মোট ৬৬৩৬টি ফ্ল্যাটের ভিতরে ৫৭৯৭টি ফ্ল্যাট বিক্রি হয়ে গেছে।এসব ফ্ল্যাট তাদের নিজ নিজ মালিকদেরকে ২০১৮এর ডিসেম্বরের ভিতরেই হস্তান্তর করা হবে এবং বাকি ৮৪০ টি ফ্ল্যাট বিক্রির জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হবে। বাকি গুলো জানুরারী ২০১৯ এর ভিতরেই হস্তান্তর করা হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

মন্ত্রী জানিয়েছেন বাংলাদেশে লেকগুলো নদীর চাইতে সাইজে বড় এবং ভুমির চাইতে লোক সংখ্যাও বেশি যার কারনে শুধু প্লট বিক্রি করে সবার জন্য আবাসন সুবিধা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়।

ধানমন্ডির পরিত্যক্ত বাড়িগুলোকে ভেঙে ফেলে নতুন হাউজিং প্রোজেক্ট করা হবে

সিনিয়র করেসপনডেন্ট

উৎস: বাংলানিউজ ২৪,

তারিখ: ১০ নভেম্বর ২০১৬

১০ নভেম্বর সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বলা হয়েছে ধামমন্ডির পুরোনো পরিত্যক্ত বাড়িগুলোকে ভেঙে নতুন আবাসিক প্রকল্প বানানো হবে। গৃহায়ণ ও গনপূর্ত মন্ত্রনালয়ে এই আলোচরা সভার আয়োজন করা হয়েছিলো। আলোচনায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, কামাল আহমেদ মজুমদার, মোহাম্মাদ জাহিদ আহসান রাসেল সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিল।

এছাড়া উত্তরা প্রোজেক্টে অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রয় এর জন্য নানা রকম আকর্ষণী প্যাকেজ সম্পর্কেও আলোকপাত করা হয়েছে। এছাড়া আবাসিক এলাকা থেকে নানা রকম বানিজ্যিক প্রকল্প উচ্ছেদের বিষয়ে রাজউকের তত্তাবধায়নে আলোচনা করা হয়েছে।

অনুচ্ছেদে প্রকল্পের ফ্ল্যাট বরাদ্দের জন্য সকল নিয়ম নীতি মেনে চলার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। এই কমিটি রাজউক এবং জাতীয় গৃহায়ন কতৃপক্ষকে আন্তর্জাতিক মান যেমন দেশের ভুমির উপাদান, ভুমিকম্প, জলবায়ু, জনসংখ্যা ইত্যাদি খেয়াল রেখে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক থেকে রাজউক ফ্ল্যাটের জন্য কম সুদের হারে হোম লোন দেওয়া হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার

উৎস: অর্থ সূচক

তারিখ: ৯ নভেম্বর ২০১৬

এই অনুচ্ছেদে রাজউক এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের চুক্তির বিষয়ে বলা হয়েছে যাতে এপার্টমেন্ট ক্রেতারা ৮.৫% সুদের হারে হোম লোন পেতে পারে। বুধবারে রাজধানী ঢাকায় অনুষ্ঠিত এ আলোচনায় অন্যান্যদের সাথে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ণ ও গনপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন।

তিনি বলেন এটিই প্রথম যেখানে ক্রেতারা রাজউকের ফ্ল্যাট কেনার জন্য লোন পাচ্ছে। রাজউকের এপার্টমেন্ট প্রোজেক্ট নিয়ে তিনি বলেন, ১০টি বিল্ডিং এর প্রায় ৮৪০টি ফ্ল্যাট মালিকদের কাছে ডিসেম্বরের ভিতরে হস্তান্তর করা হবে। আরো বলেন প্রতি স্কয়ারে মূল্য প্রায় ৪৫০০ টাকা কমানো হয়েছে।

রাজউকের চেয়ারম্যান বলেন ১৬ তলা ভবনের ৭৯ টি বিল্ডিং এর ৬৬৩৬ টি ফ্ল্যাটের কাজ শেষের পথে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও আবরার এ আনোয়ার বলেন এই চুক্ত এপার্টমেন্ট ক্রেতাদের খরচ কমানোর জন্যই করা হয়েছে। এই অফারের মাধ্যমে ক্রেতারা ২৫ বছর মেয়াদে ৮.৫% সুদের হারে লোন পাচ্ছে।

মালোয়েশিয়ার এপার্টমেন্ট প্রোজেক্ট ফেয়ারের ব্যপারে সতর্কতা

উৎস: সমকাল

তারিখ: ৬নভেম্বর, ২০১৬

এই অনুচ্ছেদে মালয়েশিয়ার এপার্টমেন্ট প্রোজেক্ট নিয়ে ক্রেতাদের সতর্কতার কথা উল্লেখ করা হয়েছে যেহেতু আইনে বলা আছে বিদেশী প্রোজেক্টে বিনিয়োগ বে-আইনী এবং সাজাযোগ্য অপরাধ।

মালয়েশিয়ার একটি কোম্পানী ‘দি মেরিন’ ঢাকায় চারদিন ব্যাপী একটা মেলার আয়োজন করে। মেলাটি রবিবার থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। এই অবস্থায় ক্রেতাদের এই ধরনের বিদেশী প্রজক্টে বিনিয়োগ করতে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে। পত্রিকাগুলোকে এই ধরনের বিদেশী কোম্পানীর প্রজেক্ট নিয়ে বিজ্ঞাপন দিতে মানা করে দেওয়া হয়েছে।

গত শুক্রবারে যেহেতু মেলা অনুষ্ঠিত হতে পারেনি, কোম্পানীর লোকেরা রিহ্যাবের কাছে আবেদন করে। এমনকি বাংলাদেশ ব্যাংক এবং রিহ্যাবের নিষেধ সত্তেও কোম্পানীটি মেলার আয়োজন করে।

কোম্পানীটির বাংলাদেশী বিক্রয় প্রতিনীধি মোরতুজা করিম বলেন মেলাটি রবি ও সোমবার রাজধানীর লেকশোরে এবং মঙ্গল ও বুধবারে চট্টগ্রাম ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরো বলেন মেলাটি শুধু তাদের জন্য অনুষ্ঠিত হবে যারা মালয়েশিয়ার এই প্রজেক্টে বিনিয়োগে আগ্রহী। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে মালয়েশিয়া প্রজেক্টে কোন ধরনের আইনী বিনিয়োগ পাওয়া যায়নি। এই মেলা শুধু ঐসব ক্রেতাদের জন্য যারা তাদের দ্বিতীয় বাড়ি খুঁজছে। এই অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে অন্য আরেকটি মালয়েশিয়ান কোম্পানীর মেলা ২০১৩ সালে আয়োজন করা হয়েছিল কিন্তু সেটা পরে বাতিল করা হয়েছিল।